পদার্থের অবস্থার পরিবর্তন এবং গলনের আপেক্ষিক সুপ্ততাপ বর্ণনা করো? - অ্যান্সগুরু
22 বার প্রদর্শিত
"পড়াশোনা" বিভাগে করেছেন

এই প্রশ্নটির উত্তর দিতে দয়া করে প্রবেশ কিংবা নিবন্ধন করুন ।

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন

অবস্থার পরিবর্তন (change of state): পদার্থ সাধারণত তিন অবস্থায় থাকে।যথা- কঠিন,তরল ও বায়বীয়।কোনো পদার্থের এক অবস্থা থেকে অন্য অবস্থায় রূপান্তরিত হওয়াকে অবস্থার পরিবর্তন বলে।যেমন তাপ দিলে বরফ গলে পানিতে পরিণত হয়ে কঠিন অবস্থা থেকে তরল অবস্থায় আসে বা পানি থেকে জলীয় বাষ্প হয়ে তরল অবস্থা থেকে বায়বীয় অবস্থায় রূপান্তরিত হয়।পদার্থের অবস্থান্তরের সময় তাপ প্রয়োগ বা তাপ অপসারণ করতে হয়।


গলন (fusion): কোনো পদার্থের কঠিন অবস্থা থেকে তরল অবস্থায় রূপান্তরিত হওয়াকে গলন বলে।একটি পরীক্ষা নলে কিছু মোম নিয়ে এর মধ্যে একটা থার্মোমিটার রাখা হল।থার্মোমিটারে দেখা যাবে মোমের তাপমাত্রা কক্ষ তাপমাত্রার সমান।এবার একটা বিকারে কিছু পানি নিয়ে থার্মোমিটারসহ টেস্টটিউবটি বিকারের পানিতে ডুবিয়ে বার্নারের সাহায্যে বিকারে তাপ প্রয়োগ করলে দেখা যাবে যে থার্মোমিটারে তাপমাত্রা বাড়তে শুরু করেছে।তাপমাত্রা বাড়তে বাড়তে একটা নির্দিষ্ট মানে পৌঁছার পর দেখা যাবে মোম গলতে শুরু করেছে।মোম গলতে শুরু করার পর আমরা যতই তাপ দেই না কেন থার্মোমিটারে তাপমাত্রা আর বাড়বে না।টেস্টটিউবের সমস্ত মোম গলে না যাওয়া র্যন্ত তাপমাত্রা অপরিবর্তিত থাকবে।সমস্ত মোম গলে যাওয়া মাত্র তরল মোম তাপমাত্রা আবার ধীরে ধীরে বাড়তে থাকবে।এখন তাপ প্রয়োগ বন্ধ করে তরল মোম ধীরে ধীর শীতল হতে দেওয়া হয় এবং আধ মিনিট পরপর থার্মোমিটারে তাপমাত্রার পাঠ নেওয়া হয়।তরল মোম জমাট বাধা শুরু না হওয়া পর্যন্ত এ তাপমাত্রা হ্রাস পেতে থাকবে।মোম জমাট বাধতে শুরু হলে তাপমাত্রা আবার স্থির হয়ে যাবে এবং সমুদয় তরল মোম জমাট না বাধা পর্যন্ত তাপমাত্রা স্থির থাকবে।সমস্ত মোম জমাট বেধে গেলে তাপমাত্রা আবার ধীরে ধীরে হ্রাস পেয়ে কক্ষ তাপমাত্রায় নেমে আসবে।উপরের পরীক্ষা থেকে দেখা যায় যে তাপ প্রয়োগে কঠিন মোম এক সময় তরলে রূপান্তরিত হচ্ছে এবং এই তরল মোমকে ঠান্ডা করলে অর্থাৎ, এর থেকে তাপ অপসারণ করলে এটি আবার কঠিন অবস্থা প্রাপ্ত হচ্ছে।সুতরাং তাপ প্রয়োগে কিংবা তাপ অপসারণে পদার্থের অবস্থান্তর ঘটে।এখন একটি ছক কাগজে অনুভূমিক অক্ষ বরাবর সময় এবং উল্লম্ব অক্ষ বরাবর তাপমাত্রা নিয়ে আঁকলে লেখের যে অংশ সময় অক্ষের সমান্তরাল হয় সেই অংশের তাপমাত্রা ঐ মোমের হিমাঙ্ক নির্দেশ করে।মোম কেলাসী হওয়ায় এই তাপমাত্রাই এর গলনাঙ্ক।


গলনের আপেক্ষিক সুপ্ততাপ : উপরের পরীক্ষা থেকে দেখা যাচ্ছে যে মোমের তাপমাত্রা গলনাঙ্কে পৌঁছে যাওয়ার পর যতই তাপ দেওয়া হোক না কেন এর তাপমাত্রা আর বাড়ছে না।এই যে তাপ দেওয়া হচ্ছে কিন্তু তাপমাত্রা বাড়ছে না এ তাপ যাচ্ছে কোথায়।এ তাপ আসলে বস্তুর অবস্থান্তর ঘটাতে কাজে লাগছে অর্থাৎ অণুগুলোর বন্ধন ছিন্ন করতে যে শক্তি প্রয়োজন তাপ থেকে সেই শক্তি গ্রহণ করছে।ঠিক একইভাবে শীতলীকরণের সময় তাপমাত্রা হিমাঙ্কে নেমে আসার পর যতই শীতল করা হোক না কেন তাপমাত্রা কমে না।এখানেও যে তাপ অপসারণ করা হচ্ছে- তা মোমের অবস্থান্তর অর্থাৎ তরল থেকে কঠিনে রূপান্তরিত করতে ব্যবহৃত হচ্ছে।এই তাপ যা বস্তুর তাপমাত্রার পরিবর্তন না ঘটিয়ে অবস্থার পরিবর্তন না ঘটিয়ে অবস্থার পরিবর্তন ঘটায় তাকে সুপ্ততাপ বলে।


অণুগুলোর মধ্যকার প্রবল আকর্ষণের জন্য অণুগুলো নিয়মিতভাবে সাজানো থাকে।আকর্ষণ প্রবল হওয়ায় অণুগুলোর স্থান ত্যাগ করতে পারে না,কিন্তু নিজ নিজ অবস্থান থেকে দ্রুত কাঁপতে থাকে।ফলে অণুগুলোর গতিশক্তি বেড়ে যায়।যখন কঠিন পদার্থটি তরলে পরিণত হয়,তখন আর এদের নিয়মিত সজ্জা থাকে না অণুগুলোর জ্যামিতিক সজ্জা ভেঙে ভেলতে শক্তির প্রয়োজন হয়।সুপ্ততাপই এ শক্তি সরবরাহ করে,তাই সুপ্ততাপ পদার্থের তাপমাত্রা বাড়াতে পারে না।

পদার্থের অবস্থার পরিবর্তন ঘটাতে প্রয়োজনীয় তাপশক্তির পরিমাণ পদার্থের ভরের ওপর নির্ভরশীল।যেমন 0°C তাপমাত্রার 1kg বরফকে 0°C তাপমাত্রার পানিতে পরিণত করতে 336000J তাপশক্তির প্রয়োজন।আবার 0°C তাপমাত্রার 2kg বরফকে 0°C তাপমাত্রার পানিতে পরিণত করতে 672000J তাপশক্তির প্রয়োজন।উভয় ক্ষেত্রে তাপশক্তিকে বস্তুর ভর দিয়ে ভাগ করলে সবসময় একই মান অর্থাৎ, 336000 Jkg^-1 পাওয়া যায়।এবং বলা হয় বরফ গলনের আপেক্ষিক সুপ্ততাপ 336000 Jkg^-1 ।কোনো কঠিন পদার্থের গলনের আপেক্ষিক সুপ্ততাপ নিচের সমীকরণের দ্বারা প্রকাশ করা যায়।

গলনের আপেক্ষিক সুপ্ততাপ = যে কোনো ভরের কঠিন পদার্থের তাপমাত্রা পরিবর্তন না করে তরলে পরিণত করতে প্রয়োজনীয় তাপশক্তি / কঠিন পদার্থের ভর

উপরের আলোচনা থেকে গলনের আপেক্ষিক সুপ্ততাপকে এভাবে সংজ্ঞায়িত করা যায়:
গলনাঙ্কে তাপমাত্রা স্থির রেখে 1kg ভরের কোনো কঠিন পদার্থকে কঠিন অবস্থা থেকে তরল অবস্থায় রূপান্তরিত করতে যে তাপের প্রয়োজন হয় তাকে ঐ পদার্থের গলনের আপেক্ষিক সুপ্ততাপ বলে।গলনের আপেক্ষিক সুপ্ততাপকে lf দ্বারা সূচিত করা হয়।তাপমাত্রার পরিবর্তন না ঘটিয়ে m kg কোনো ভরের কোনো কঠিন পদার্থকে তরলে রূপান্তরিত করতে যদি Q পরিমাণ তাপের প্রয়োজন হয় তাহলে,1kg ভরের কঠিন পদার্থকে তরলে পরিণত করতে Q/m পরিমাণ তাপের প্রয়োজন হয়।


একক: তাপের একককে ভরের একক দিয়ে ভাগ করলে গলনের আপেক্ষিক সুপ্ততাপের একক পাওয়া যায়।গলনের আপেক্ষিক সুপ্ততাপের একক জুল/কিলোগ্রাম। বরফ গলনের আপেক্ষিক সুপ্ততাপ 336000 Jkg^-1 এর অর্থ হচ্ছে 0°C তাপমাত্রার 1kg বরফকে 0°C তাপমাত্রার পানিতে পরিণত করতে 336000J তাপের প্রয়োজন হয়।পক্ষান্তরে 0°C তাপমাত্রার 1kg পানি 0°C তাপমাত্রার বরফে পরিণত হওয়ার জন্য 336000 জুল তাপ বর্জন করে।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
27 নভেম্বর 2021 "পড়াশোনা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Md. Redowan lslam
1 উত্তর
1 উত্তর
27 নভেম্বর 2021 "পড়াশোনা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Md. Redowan lslam
1 উত্তর
অ্যান্সগুরু বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি অনলাইন কমিউনিটি। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করতে পারবেন ৷ আর অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে অবদান রাখতে পারবেন ৷

1,381 টি প্রশ্ন

1,164 টি উত্তর

5 টি মন্তব্য

50,787 জন সদস্য

7 Online Users
5 Member 2 Guest
Today Visits : 4025
Yesterday Visits : 9030
Total Visits : 337563
...