শব্দের দ্রুতি বলতে কী বোঝায়? - অ্যান্সগুরু
20 বার প্রদর্শিত
"পড়াশোনা" বিভাগে করেছেন

এই প্রশ্নটির উত্তর দিতে দয়া করে প্রবেশ কিংবা নিবন্ধন করুন ।

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন
সম্পাদিত করেছেন

শব্দের দ্রুতি (speed of sound): আমাদের দৈনন্দিন জীবনের অভিজ্ঞতা থেকে দেখা যায় যে, শব্দ সঞ্চারণের জন্য কিছু সময়ের প্রয়োজন।বজ্রপাতের সময় আলোর ঝলক দেখার বেশ কিছু সময় পরে মেঘের গর্জন শোনা যায়,যদিও গর্জন এবং আলোর ঝলক একই সাথে ঘটে।মেঘ ও পৃথিবীর মধ্যকার দূরত্ব অতিক্রম করতে শব্দের কিছু বেশি সময় লাগে বলেই মেঘের গর্জন পরে শোনা যায়।আলোর ক্ষেত্রে এ দূরত্ব অতিক্রম করতে কোনো সময় লাগে না বলে ধরা যায়,কারণ আলো সেকেন্ডে প্রায় তিন লক্ষ কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রম করে।দূরে যদি বন্দুক ছোঁড়া হয় তাহলে নলের মুখের আলোর ঝলক দেখার বেশ পরে গুলির আওয়াজ শুনতে পাওয়া যায়।আবার দূরে কোথাও ক্রিকেট খেলা দেখার সময় ব্যাট ও বলের সংঘাত দেখার বেশ কিছু সময় পরে আওয়াজ শুনতে পাওয়া যায়।এ থেকে আমরা বুঝতে পারি যে দূরত্ব অতিক্রম করার জন্য শব্দ তরঙ্গের কিছুটা সময়ের প্রয়োজন।শব্দ নির্দিষ্ট মাধ্যমে একটা নির্দিষ্ট বেগে দূরত্ব অতিক্রম করে।


পরীক্ষা করে দেখা গেছে 0°C বা 273K তাপমাত্রায় এবং স্বাভাবিক চাপে শুষ্ক বায়ুতে শব্দের দ্রুতি 332 ms^-1 তাপমাত্রা বৃদ্ধির সাথে সাথে শব্দের দ্রুতি বেড়ে যায়।হিসাব করে দেখা গেছে 1°C বা 1K তাপমাত্রা বাড়ালে বাতাসে শব্দের দ্রুতি প্রায় 0.6 ms^-1 বৃদ্ধি পায়।বাতাসের আর্দ্রতা বেড়ে গেলেও শব্দের দ্রুতি বেড়ে যায়।


শুধু বাতাস নয়,যে কোনো বায়বীয়,তরল বা কঠিন পদার্থের মাধ্যমেও শব্দ সঞ্চারিত হতে পারে।মাটিতে কান পেতে থাকলে আমরা বহু দূরের শব্দ শুনতে পাই।পানির ভিতর ডুব দিলেও শব্দ অনেক দৃর পর্যন্ত শোনা যায়।বিভিন্ন মাধ্যমে শব্দ বিভিন্ন দ্রুতিতে সঞ্চারিত হয়।কঠিন মাধ্যমে শব্দ সবচেয়ে দ্রুত চলে,তরল মাধ্যমে তার চেয়ে দীরে চলে।বায়বীয় মাধ্যমে শব্দের দ্রুতি সবচেয়ে কম আর ভ্যাকিউয়ামে তো শব্দের দ্রুতি শূন্য।


প্রায় এক কিলোমিটার লম্বা লোহার একটি ফাঁপা নলের এক প্রান্তে হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করে অপর প্রান্তে কান পাতলে শ্রোতা পরপর দুটি শব্দ শুনতে পায়।বায়ু মাধ্যমের চেয়ে কঠিন মাধ্যমে শব্দ জোরে চলে বলে এরকম হয়।পাইপের এক প্রান্তে সৃষ্ট শব্দ লোহার মধ্য দিয়ে অন্যপ্রান্তে পৌঁছার কিছুক্ষণ পরে বায়ুর মধ্য দিয়ে পুনরায় পৌঁছে,তাই শব্দ দুবার শোনা যায়।হিসাব করে দেখা গেছে লোহার মধ্যে শব্দ বাতাসের চেয়ে প্রায় ১৫ গুণ দ্রুত চলে।লোহাতে শব্দের দ্রুতি প্রায় 5221 ms^-1 ।


পানিতে ডুব দিয়ে কেউ যদি হাততালি দেয়,তাহলে ডুবন্ত অবস্থায় অন্য কেউ তালির শব্দ জোরে শুনতে পারে কিন্তু পানির উপরে কান থাকলে শব্দ তেমন স্পষ্ট শোনা যাবে না।এক্ষেত্রে শব্দ পানি অর্থাৎ,তরল মাধ্যমের মধ্য দিয়ে সঞ্চারিত হচ্ছে।পুকুরের পানিতে বৃষ্টির ফোঁটা পড়লে বাইরে থেকে যে শব্দ খুব আস্তে শোনা যায় পানিতে ডুব দিয়ে শুনলে ঐ শব্দ বেশ জোরে শোনা যায়।এ থেকে বোঝা যায় শব্দ বায়বীয় মাধ্যমের চেয়ে তরল মাধ্যমে দ্রুত চলে।হিসাব করে দেখা গেছে পানির মধ্যে শব্দ বাতাসের চেয়ে প্রায় চারগুণ দ্রুত চলে।পানিতে শব্দের দ্রুতি প্রায় 1450 ms^-1 ।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
21 অগাস্ট 2021 "পড়াশোনা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Md. Redowan lslam
1 উত্তর
1 উত্তর
21 অগাস্ট 2021 "পড়াশোনা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Md. Redowan lslam
1 উত্তর
21 অগাস্ট 2021 "পড়াশোনা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Md. Redowan lslam
1 উত্তর
অ্যান্সগুরু বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি অনলাইন কমিউনিটি। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করতে পারবেন ৷ আর অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে অবদান রাখতে পারবেন ৷

1,381 টি প্রশ্ন

1,164 টি উত্তর

5 টি মন্তব্য

50,875 জন সদস্য

4 Online Users
2 Member 2 Guest
Online Members
Today Visits : 4214
Yesterday Visits : 9030
Total Visits : 337752
...